ম্যাচ জয়ের পর ও যে কারণে স্টাম্প নেননি সাকিব

ম্যাচ জয়ের পর ও যে কারণে স্টাম্প নেননি সাকিব


ads

বিশ্বকাপে উইন্ডিজের বিপক্ষে ২৩ রান যোগ করে অনন্য এক রেকর্ডে নাম লিখিয়েছেন টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ক্রিকেট ইতিহাসে চতুর্থ ক্রিকেটার হিসেবে ৬ হাজার রান ও ২৫০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন তিনি।

এর আগে এই রেকর্ডে নাম ছিল কেবল লঙ্কান কিংবদন্তী সনাথ জয়াসুরিয়া, সাবেক প্রোটিয়া তারকা জ্যাক ক্যালিস ও পাকিস্তানি অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদির।এবার এই তালিকায় নিজের নাম যোগ করেছেন সাকিব। ব্যাট হাতে ১৩ হাজার ৪৩০ রান ও ৩২৩ উইকেট নিয়ে এই তালিকার শীর্ষে আছেন জয়াসুরিয়া। ১১ হাজার ৫৭৯ রান নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন জ্যাক ক্যালিস।

আর ৮ হাজার ৬৪ রান ও ৩৯৫ উইকেট নিয়ে এই তালিকার ৩ নম্বরে শহীদ আফ্রিদি। উইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচের আগে সাকিব ৫ হাজার ৭৭ রান নিয়ে এই মাইলফলকে নাম লেখানোর অপেক্ষায় ছিলেন।

এর আগেই ২৫০ উইকেটের মালিক ছিলেন সাকিব। বিশ্বকাপে সাকিবের ব্যাটিং ফর্মের কারণে অনুমেয়ই ছিল উইন্ডিজের বিপক্ষে এই ডাবলে পৌঁছাবেন এই অলরাউন্ডার।

সাকিব ৬ হাজার রানের মাইলফলকে পৌঁছাতে মাত্র ১৯০ ইনিংস নিয়েছেন। সমান সংখ্যক ইনিংসে ৬ হাজারী ক্লাবে যোগ দিয়েছিলেন সাবেক ভারতীয় ওপেনার বীরেন্দর শেহবাগ ও উইন্ডিজ তারকা শিবনারায়ণ চন্দরপল।

৪২তম ওভারের তৃতীয় বল, ডেলিভারি করলেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। স্ট্রাইকিং প্রান্তে থাকা লিটন কুমার দাসের ব্যাট ছুঁয়ে বল খুঁজে নিল সীমানা। বাংলাদেশ পেয়ে গেল কাঙ্ক্ষিত চারটি রান।

৫১ বল বাকি রেখে পায়া ৫ উইকেটের এই জয়ে নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের জন্য বিশেষ এক অর্জন। নিজেদের সবচেয়ে বেশি রান তাড়ার ম্যাচে সাকিব আল হাসান জয়ের নায়ক। বল হাতে ২ উইকেট শিকারের পর ব্যাট হাতে ৯৯ বলে ১২৪ রানের ঝড়ো ইনিংস।

সেজন্যই কিনা, ম্যাচ শেষ হতেই হাত বাড়ালেন স্ট্যাম্পের দিকে। আবার কী বুঝে রেখেও দিলেও। দৃষ্টি এড়ায়নি ব্যাপারটি। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্ন ছুঁড়লেন এক সাংবাদিক- ‘স্ট্যাম্প তুলতেও গিয়েছিলেন, কিন্তু পরে রেখে দিলেন যে?’

এমন প্রশ্নে সাকিব দিলেন অদ্ভুত এবং রসাত্মক এক উত্তর।

বিশ্বকাপের মত বড় আসরে এখন স্ট্যাম্পে যুক্ত থাকে এলইডি লাইট। স্ট্যাম্প কোনো কিছুর ছোঁয়া পেলেও জ্বলে ওঠে সেই বাতি। এমন স্ট্যাম্প প্রস্তুত করা বেশ ব্যয়বহুল। ক্রিকেটাররা তাই চাইলেই এত সহজে আগের মত স্ট্যাম্পকে স্মারক হিসেবে নিয়ে যেতে পারেন না। হাস্যজ্বল মুখে সাকিব জানালেন সেই কথাই।

তিনি বলেন-‘ঐ যে এখন জিং বেল না কী বলে, লাইট-টাইট জ্বলে… তাই এগুলো দেয় না। নিয়ে লাভ নাই আসলে।’

স্ট্যাম্প হয়ত নেননি, চাইলে নিতেও পারতেন নির্ধারিত অর্থ পরিশোধ করে। ম্যাচের স্মারক হিসেবে অন্য যেকোনো কিছু রাখা যাবে। কিন্তু সাকিবের উড়ন্ত পারফরম্যান্সের সুবাদে সমর্থকরা ঠিকই পেয়ে গেছেন ম্যাচের স্মারক। অবিস্মরণীয় জয়ের স্মারক তো সাকিব নিজেই!

Share

Please Share This Post in Your Social Media

ads

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019 khelajogbd
Design BY NewsTheme