সিপিএলে ব্যাট হাতে তান্ডব চালালেন সাকিব

সিপিএলে ব্যাট হাতে তান্ডব চালালেন সাকিব


ads

সিপিএলের চলমান আসরে নিজের প্রথম ম্যাচে বল হাতে নজরকাড়া পারফরম্যান্সের পর ব্যাট হাতেও দূর্দান্ত শুরু সাকিব আল হাসানের। বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টসের রান তাড়ায় ওয়ান ডাউনে ব্যাট করতে নেমে দ্রুতগতিতে রান তুলছেন তিনি।

১৫০ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১৫ রানের সময় প্রথম উইকেট হারায় বার্বাডোজ। এরপর দলের হাল ধরতে ক্রিজে আসেন সাকিব। নিজের খেলা দ্বিতীয় বলেই রানে খাতা খুলেন তিনি। সতীর্থ অ্যালেক্স হেলসকে দর্শক বানিয়ে এরপর শুরু হয় সাকিব তাণ্ডব।

চতুর্থ ওভারে মোহাম্মদ হাফিজকে ৪ মেরে স্বাগতম জানান সাকিব। ছক্কা হাঁকান ঠিক দ্বিতীয় বলে। আগ্রাসী মনোভাব বজায় রেখে কার্লোস ব্র্যাথওয়েটের করা পরবর্তী ওভারের প্রথম বলেও ৪ মারেন সাকিব। এরপর খেলতে থাকেন বলের মেধা-গুণ বিচার করে। এ প্রতিবেদন লেখার সময়, ১৮ বল থেকে ২৮ রান নিয়ে ব্যাট করছেন সাকিব। ২ চার ও ১ ছক্কায় ১৬১.৫৩ স্ট্রাইক রেটে এখনো পর্যন্ত এ রান সংগ্রহ তার।

এর আগে নিজের প্রথম ম্যাচেই বল হাতে দ্যুতি ছড়িয়েছেন সাকিব আল হাসান। আঁটসাঁট বোলিংয়ের বিপরীতে নিয়েছেন উইকেটও। বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টসের হয়ে ৪ ওভারে ১৪ রান খরচার বিপরীতে নেন ১ উইকেট। ওভারপ্রতি ৩.৫০ হারে রান দেওয়ার দিন ১ মেডেনসহ মোট ১২টি ডট বল করেন তিনি।

সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়। বার্বাডোজের অধিনায়ক জেসন হোল্ডার স্পিন আক্রমণ দিয়ে শুরু করেন বোলিং। প্রথম ওভার করার জন্য বল তুলে দেন সাকিবের হাতে। ইনিংসের প্রথম ওভারে মেডেন আদায় করে নিয়ে অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দেন সাকিব।

ইনিংসের তৃতীয় ওভারে আবারও বোলিংয়ে আসেন বাঁহাতি এ স্পিনার। এবার প্রথম দুটি বলের পর চতুর্থ ও পঞ্চম বলে এক করে মোট চার রান দেন তিনি। তার ওভারের বাকি দুটি বল ছিল ডট। আঁটসাঁট দুই ওভারের পর পাওয়ার প্লে-তে সাকিবকে আর বল করেননি সাকিব।

প্রতিপক্ষের ওপর চাপ প্রয়োগ করতে তাকে আবার আক্রমণে ফিরিয়ে আনা হয় ইনিংসের নম্বর ওভারে। ব্যক্তিগত তৃতীয় ওভারে ৬ (১, ১, ০, ২, ১, ১) রান খরচ করেন তিনি। এরপর আবারও তাকে সরিয়ে নেওয়া হয় বোলিং থেকে।

তৃতীয় স্পেলে তাকে আবার ফিরিয়ে আনা হয় ইনিংসের ১৭তম ওভারে। আগের তিন ওভারে ১০ রান খরচ করলেও কোনো উইকেট নিতে পারেননি সাকিব। নিজের শেষ স্পেলে এসে এর আর পুনরাবৃত্তি হতে দেননি তিনি।

ব্যক্তিগত শেষ ওভারের প্রথম বলেই শিকার করেন উইকেট। ৭ রান করা কার্লোস ব্র্যাথওয়েটকে লেগ-বিফোর করে ফেরান সাজঘরে। ওভারের পররবর্তী তিন বলে ৪ রান খরচ করলেও বাকি দুটি বল ডট দিয়ে শেষ করেন নিজের ৪ ওভারের কোটা।

সাকিবের নজরকাড়া বোলিংয়ের দিন নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেটে ১৪৯ রান করতে সক্ষম হয়েছে সেন্ট কিটস। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৩ রান করেছেন সামারহ বুকস। ৩৩ বল মোকাবেলায় ৬ চার ও ২ ছক্কায় এ রান করেছেন তিনি।

বার্বাডোজের বোলারদের মধ্যে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন হেডেন ওয়ালশ ও হ্যারি গারনে।

Please Share This Post in Your Social Media

ads

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019 khelajogbd
Design BY NewsTheme